ঢাকা, ||

আমার প্রকৃত বন্ধু ছিলো সালমান: মৌসুমী



অর্থনীতি

প্রকাশিত: ৮:০০ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৭, ২০১৭

বাংলা চলচ্চিত্রের অন্যতম সফল অভিনেত্রী মৌসুমী। চলচ্চিত্রে তার অভিষেক হয়েছিলো অমর নায়ক সালমান শাহ’র বিপরীতে। ১৯৯৩ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত সোহানুর রহমান সোহান পরিচালিত ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে অভিষেক ঘটে সালমানেরও। চলচ্চিত্রটির আকাশচুম্বী সাফল্য বড়পর্দায় প্রতিষ্ঠিত করে তোলে সালমান-মৌসুমীকে। এরপরের বছর চারটি চলচ্চিত্রে জুটি বেঁধে অভিনয় করেন তারা।

মাত্র চারবছরের ক্যারিয়ারে ২৭টি চলচ্চিত্র উপহার দিয়েছিলেন সালমান শাহ। ১৯৯৬ সালে তার রহস্যময় মৃত্যুর পর কেঁদেছে বড়পর্দার কোটি ভক্ত। এখনও ভক্তদের হৃদয়ে অমর অবস্থান সালমানের জন্য। ৬ সেপ্টেম্বর প্রিয় নায়কের মৃত্যু দিনে তার হত্যাকাণ্ডের বিচার চেয়ে রাজপথে বিক্ষোভ সমাবেশও করেছেন তারা।

এদিকে সালমান শাহকে স্মরণ করেছেন চিত্রনায়িকা মৌসুমীও। শুধু অভিনয় জীবনের সঙ্গীই নয়, সালমান ছিলেন তার আশৈশব বন্ধু।খুলনায় একই স্কুলে পড়তেন তারা দু’জন।  পরবর্তী জীবনে পারিবারিক ভুল বোঝাবুঝির কারণে সে বন্ধুত্বে বিচ্ছিন্নতা তৈরি হলেও পরবর্তীতে চলচ্চিত্রে এসে ফের এক হন তারা।

মৃত্যুদিনে সারাটাদিন প্রিয় বন্ধুকে মিস করেছেন তিনি, এমনটা জানিয়ে বুধবার এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে মৌসুমী লেখেন, “আমাদের চলচ্চিত্রের সাথে জড়িত প্রতিটা মানুষই চোখের জলে ভাসছে আজ। কারণ আজ সেই দিন যে দিনে আমরা সবাই হারিয়েছি আমাদের অতি প্রিয় ও গুণী একজন তারকা সালমান শাহ্‌কে। সে শুধু একজন অভিনেতাই ছিলোনা, সে ছিলো আমার শৈশব, কৈশোরের বন্ধু। একসাথে পথ চলা ছোটবেলা থেকেই। মাঝপথে বিরতির পর সোহানুর রহমান সোহান স্যারের ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ ছবির মাধ্যমে আমাদের বন্ধুত্ব আবার নতুন করে শুরু হয় ।”

তিনি আরও লেখেন, “যদিও মাত্র চারটি ছবিতে আমি সালমানের সঙ্গে কাজ করেছি কিন্তু আমার প্রকৃত বন্ধু ছিলো সে। আজ এতটা বছর পরও তাকে ভুলে যাওয়া সম্ভব হয়নি। হয়তো কখনও পারবোনা তাকে ভুলে যেতে। তুই আছিস আগেরই মত বন্ধু হয়ে মনের গহীনে।”

সালমান শাহর বিপরীতে মৌসুমী অভিনীত চলচ্চিত্রগুলো হলো- সোহানুর রহমান সোহান পরিচালিত ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’, শিবলী সাদিক পরিচালিত ‘অন্তরে অন্তরে’, গাজী মাজহারুল আনোয়ার পরিচালিত ‘স্নেহ’ ও শফী বিক্রমপুরী পরিচালিত ‘দেনমোহর’।